আওয়ামী লীগে পদ পেলেন নিক্সন চৌধুরীর স্ত্রী

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপ কমিটিতে সদস্য হিসেবে পদ পেয়েছেন ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনের স্ত্রী তারিন হোসেন মঞ্জু। তিনি সাবেক পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর কন্যা এবং দৈনিক ইত্তেফাকের প্রকাশক ও নির্বাহী পরিচালক। জন্মসূত্রে বড় একটি রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য তারিন হোসেন। তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়ার নাতনি তিনি। যুক্তরাষ্ট্রে লেখাপড়া করেছেন তারিন হোসেন। তার বাবা আনোয়ার হোসেন মঞ্জু পাঁচবার মন্ত্রী ছিলেন। তিনি এখন জাতীয় পার্টি-জেপির চেয়ারম্যান। তারিন হোসেনের

হাজারও ব্যস্ততার মধ্যেও একে অপরকে যথেষ্ঠ সময় দেন সৃজিত-মিথিলা

সুইমিং পুলে স্ত্রীর সঙ্গে জলকেলিতে ব্যস্ত সৃজিত মুখোপাধ্যায়। সঙ্গে রয়েছে মিথিলার কন্যা আইরাও। জলকেলির কয়েকটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করেছেন সৃজিতের স্ত্রী মিথিলা। ভারতের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে ফিরেছেন মিথিলা। ফিরে গিয়ে খোশ মেজাজেই ধরা পড়লেন দু’জনে। মেয়ে আইরাকে নিয়ে হাসিখুশিই কাটছে সৃজিত-মিথিলার সংসার। সুইমিং পুলে ক্যামেরাব’ন্দি সৃজিত-মিথিলা আর ছোট্ট আইরার ছবি ঠিক এমনটাই জানান দেয়। দেখতে দেখতে দাম্পত্য জীবনের এক বছরেরও বেশি সময় কা’টিয়ে ফেলেছেন সৃজিত-মিথিলা। হাজারও ব্যস্ততার মধ্যেও সৃজিত-মিথিলা

সিলেটে মা-বোনের পর মারা গেল ৭ বছর বয়সী শিশু তাহসান

সিলেট শহরতলির শাহপরান থানা এলাকার মীর মহল্লায় সৎ ভাইয়ের দা’য়ে’র ‘কো’পে মা ও বোনের মৃ’ত্যু’র পর আ’হ’ত তাহসান আহমদও (৭) মা’রা গেছে। শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ভোরে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার ‘মৃ’ত্যু হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আনিসুর রহমান। তিনি বলেন, ওই এলাকার আবদাল হোসেন বুলবুলের ছেলে আবাদ হোসেনের দা’য়ে’র ‘কো’পে সৎ মা রুবিয়া বেগম ও সৎ বোন মাহা ঘটনাস্থলেই ‘মা’রা যায়। তার সৎ ভাই

ক্লাস নাইনে থাকাকালে প্রথম প্রেম প্রস্তাব পাই রক্ত দিয়ে লেখা চিঠিতে: পরীমনি

ভালোবাসা একটি মানবিক অনুভূতি এবং আবেগকেন্দ্রিক একটি অ’ভি’জ্ঞতা। বিশেষ কোন মানুষের জন্য স্নেহের শক্তিশালী বহিঃপ্রকাশ হচ্ছে ভালোবাসা। কখন, কীভাবে, কোন মুহূর্তে ভালোবাসা মানুষকে ছুঁ’য়ে যায়, তা হয়তো সে নিজেও পুরোপুরি বুঝে উঠতে পারে না। কোন বাধায়, শা’সনে তাকে আট’কে রাখা যায় না। প্রতিটি মানুষের জীবনেই কোনো না কোনো ভাবে ভালোবাসার আভির্বাব ঘটে। এই ভালোবাসা জীবনে প্রথমবার যখন আসে তখন। তৈরি হয় অন্য রকম এক অনুভূতি। ঢাকাই ছবির নায়িকা পরীমনির জীবনের প্রথম ভালোবাসা কবে এসেছিলো? ভালোবাসা

স্বামীকে স্বপ্নে দেখেই গর্ভবতী স্ত্রী!

কাজের সূত্রে স্বামী থাকেন দূরের শহরে। গত সাত মাস ধরে তিনি বাড়িতে আসেন নাই। অথচ গর্ভবতী হয়ে পড়েছেন স্ত্রী। এ ঘটনা কীভাবে সম্ভব! এ নিয়ে স্ত্রীর দাবি, স্বামীকে ভালবেসে স্বপ্নে দেখার কারণেই তিনি গর্ভবতী হয়েছেন। যদিও তার এ কথা মেনে নেয়নি তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন। ওই দম্পতির বাড়ি বিহারের ভাগলপুর জেলার জগদীশপুরে। পাঁচবছর আগে বিয়ে হয়েছিল তাদের। বর্তমানে দেড় বছরের একটি মেয়েও আছে তাদের সংসারে। তবে কাজের সূত্রে গত সাতমাস ধরে কলকাতায় থাকছেন তার

দুই ঈদের উৎসব ভাতা দিয়েই প্রাথমিক শিক্ষকদের ব‍্যাংক-হাসপাতাল!

প্রাথমিক শিক্ষকদের অনেক দিনের লালিত স্বপ্ন নিজেদের মালিকানায় একটি স্বতন্ত্র ব্যাংক থাকবে। যা নিয়ে শিক্ষকদের বিভিন্ন ফেসবুকে গ্রুপে অনেক লেখালেখি এর আগেও লক্ষ্য করা গেছে। শিক্ষকদের সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়নে রূপ দেয়ার বিষয়ে সম্প্রতি বেশ ইতিবাচক কথা বলেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। তিনি বলেন, শিক্ষকদের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান গড়তে পারে। প্রাথমিক শিক্ষা পরিবার চাকরিজীবীদের মধ্যে সর্ববৃহৎ। শিক্ষকরা ইচ্ছা করলে কল্যাণ ট্রাস্টকে অনেক বড় করে ফেলতে পারে। আপনাদের সামান্য টাকা একত্রিত করতে পারলে অনেক

মান্না কিভাবে মারা গেছে মানুষ এ বছরই জানবে: স্ত্রী শেলী

বাংলাদেশের শূন্য দশক-পরবর্তী চলচ্চিত্রের সময়টা এককভাবে নিজের আয়ত্তে রেখেছিলেন চিত্রনায়ক মান্না। সেই মান্না আকস্মিকভাবে ‘নাই’ হয়ে গেলেন। মান্নার মৃত্যু এখন পর্যন্ত স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেনি লক্ষকোটি ভক্ত। এখনো মান্নার জন্য চোখের জল আসে অজস্র অনুরাগীর। আগামীকাল ১৭ ফেব্রুয়ারি, চিত্রনায়ক মান্নার প্রয়াণের আজ ১৩ বছর। ২০০৮ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে মারা যান সৈয়দ মোহাম্মদ আসলাম তালুকদার ওরফে মান্না। কিন্তু মান্নার ওই মৃত্যুকে কোনোভাবেই স্বাভাবিক মানতে রাজি নন মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না। তার দাবি মান্নাকে সঠিক

ভাবির সঙ্গে স্বামীর অবৈধ মেলামেশা, দেখার পর মিলল তিন মাসের অন্ত:সত্ত্বা স্ত্রীর লাশ!

চাঁদপুর জেলার কচুয়ার করইশ গ্রামে বুধবার রাতে সীমা আক্তার (২১) নামের এক গৃহবধূর ঝু’লন্ত লা”শ উ”দ্ধা’র করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় স্বামী নাছির উদ্দিন ও ভাবি খালেদা আক্তারকে গ্রে”প্তা’র করা হয়েছে। সীমা আক্তারের মা বিলকিছ আক্তার বা’দী হয়ে কচুয়া থানায় একটি মা’ম’লা দা’য়ের করেছেন। মা”ম’লা সূত্রে জানা যায়, করইশ গ্রামের ইলিয়াস মিয়ার ছেলে নাছির উদ্দিনের সাথে প্রায় দুই বছর পূর্বে সামাজিকভাবে সীমার বিয়ে হয়। সম্প্রতি নাছির উদ্দিন তার বড় ভাই শেখ ফরিদের স্ত্রী খালেদা বেগমের (৩০)